মঠবাড়িয়ার ১১ নং বড়মাছুয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের “সাধারণ সম্পাদক” পদে আলোচনার শীর্ষে সোহেল - মঠবাড়িয়ার বার্তা

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Tuesday, January 21, 2020

মঠবাড়িয়ার ১১ নং বড়মাছুয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের “সাধারণ সম্পাদক” পদে আলোচনার শীর্ষে সোহেল


পঙ্কজ মিত্র : সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে আলোচনায় চলে এসেছে বড়মাছুয়া ইউনিয়নের মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী পরিবারের সন্তান জনপ্রিয় সমাজ সেবক জুলফিকার আমীন সোহেল। ইউনিয়নের সকল শ্রেনী পেশার মানুষ তাকে বড়মাছুয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক হিসাবে দেখতে চান আওয়ামীলীগ প্রেমীরা। নেতাকর্মীদের সুখে দুঃখে সম্মিলিত ভাবে কাজ করা ও সার্বিক খোঁজ-খবর রাখার জন্যই তাকে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক করার জন্য ইউনিয়ন আওয়ামী নেতাকর্মিরা যেন উঠে-পরে লেগেছেন। আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক নেতাকর্মীদের সাথে বাংলাদেশ সরকারের উন্নয়ন মূলক কাজে শতঃস্ফূর্ত ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, জুলফিকার আমীন সোহেল চান দুঃসময়ের কান্ডারীদের ও আওয়ামী লীগের নিবেদিতদের নিয়ে দালাল বাটপার দূর্নীতিবাজদের প্রতিহত করে জনগনের সমর্থন নিয়ে বড়মাছুয়া ইউনিয়নকে মঠবাড়িয়া উপজেলার শ্রেষ্ঠ ইউনিয়নে পরিনত করতে। তার সাথে এলাকার মুরব্বি ও বিগত দিনের আওয়ামী লীগের নেত্রীবৃন্দ ও বর্তমান যুব সমাজসহ সকলেই তার পাশে আছেন এবং ভবিষ্যতেও থাকবেন বলে মনে করেন। সমাজকর্মী হিসাবে ইউনিয়নের সকল ওয়ার্ডের মেম্বর সাথে এবং চেয়ারম্যান সাহেবের সাথে মত বিনিময় করে জনগনের কাজে ও উন্নয়ন মূলক কাজে সহযোগিতা করে আসছেন।
 
এলাকার মানুষ ও আওয়ামী সদস্যদের বিশ্বাস জুলফিকার আমীন সোহেল বখাটে-ইভটিজার দমন করা ও দলীয় শৃংখলা বজায় রাখতে পারবে এবং তিনিই ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক হিসাবে যোগ্য প্রার্থী হিসেবে বিবেচনায় আছেন। তার জন্য দোয়া ও শুভকামনা করেন ইউনিয়নের সকল শ্রেনী পেশার মানুষ শিশু থেকে বৃদ্ধারাও। ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ নাসির হোসেন হাওলাদারের উন্নয়ন মূলক কর্ম-কান্ডে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ সহযোগিতা করছেন। রয়েছে তার সাথে যথেষ্ট সুসম্পর্ক এমনি করে সকল মানুষের সাথে রয়েছে তার সু-সম্পর্ক সুতারং আগামী দিনে বড়মাছুয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদকের হাতছানি তার দিকে ঝুকে পড়েছেন।

জুলফিকার আমীন সোহেল জানান, আমি একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান। জন্ম সূত্রে বা ওয়ারিশ সূত্রে আওয়ামী পরিবারের সদস্য। বিগত দিনে ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছা সেবকলীগ ও মৎস্যজীবী লীগের কমিটিতে বিভিন্ন দায়িত্ব নিষ্ঠার সাথে পালন করেছেন। তিনি আরও বলেন, আমি সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হলে আ‘লীগের মূল ধারার রাজনীতির ধারা বজায় রাখবো। তিনি আশা করছেন, উপজেলা, জেলা, বিভাগীয় ও কেন্দ্রীয় নেতারা তার  মূল্যায়ন করবেন। প্রধানমন্ত্রী ও আ‘লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সরকার এদেশে বারবার দরকার বলে তিনি প্রধানমন্ত্রীর জন্য সকলের কাছে দোয়া প্রার্থণা করেছেন। ইউনিয়নের উন্নয়ন মূলক কাজে এবং দেশের উন্নয়নে আসুন সংঘাত নয় সমাধান চাই।
 
বড়মাছুয়া ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সভাপতি মো. জাকির হোসেন ফকির ও ৬ নং ওয়ার্ড আ‘লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মো. নজরুল ইসলাম টুকু জানান, জুলফিকার আমীন সোহেল মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী পরিবারের সন্তান। সে আওয়ামী নেতা-কর্মিদের মূল্যায়ন করতে পারবে। তার কাছে আওয়ামী রাজনীতি নিরাপদে থাকবে।
 
মঠবাড়িয়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো. বাচ্চু মিয়া আকন বলেন, বড়মাছুয়া ইউনিয় আ‘লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে জুলফিকার আমীন সোহেল শতভাগ যোগ্য। কারন সে মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী পরিবারের সন্তান।
 
উপজেলা আ‘লীগ সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হক সেলিম মাতুব্বর বলেন, জুলফিকার আমীন সোহেল মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী পরিবারের সন্তান হিসেবে সে ওই পদ চাইতে পারে। সকলের সিদ্ধান্ত ক্রমে বড়মাছুয়াসহ সকল ইউনিয়নে যোগ্য ব্যক্তিদের দায়িত্ব দেয়া হবে।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad

Responsive Ads Here