মঠবাড়িয়ায় ত্রান দেয়ার নামে নারী ভাইস চেয়ারম্যানের সাথে প্রতারনা : থানায় জিডি - মঠবাড়িয়ার বার্তা

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Saturday, April 18, 2020

মঠবাড়িয়ায় ত্রান দেয়ার নামে নারী ভাইস চেয়ারম্যানের সাথে প্রতারনা : থানায় জিডি


বার্তা রিপোর্ট : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় প্রতারনার অভিযোগ এনে বৃহস্পতিবার (১৬ এপ্রিল) রাতে উপজেলা চেয়ারম্যান সহ ৩ জনের বিরুদ্ধে থানায় জিডি করেছেন উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান এ্যাড. নাছরিন জাহান। ওই জিডিতে উল্লেখ করা হয়, গত ১৫ এপ্রিল সকাল ১১টার দিকে  উপজেলা চেয়ারম্যান মো. রিয়াজ উদ্দিন আহম্মেদ তার ব্যাক্তিগত মোবাইল ফোন থেকে নারী ভাইস চেয়ারম্যান ব্যাক্তিগত মুঠো ফোনে ফোন দিয়ে একটি মোবাইল নাম্বার (০১৭১৫৪৯২১১১) দিয়ে বলেন  ওই নাম্বারে ১০ জন দুঃস্থ্য লোকের তালিকা দিতে। আর ওই নাম্বারটি রেডক্রিসেন্ট এর পিরোজপুর জেলা অফিসের এক কর্মচারীর নাম্বার।
জিডিতে উল্লেখ করা হয়, নারী ভাইস চেয়ারম্যান ওই নাম্বারে ফোন দিলে তিনি মামুন নামের রেডক্রিসেন্টের পিরোজপুর জেলার এক কর্মচারী হিসাবে পরিচয় দেয়। নারী ভাইস চেয়ারম্যান তার কাছে নামের তালিকা পাঠানোর সময় চায়। কিন্তু এর মধ্যে ওই দিন বিকাল ৩টা ১৩ মিনিটের সময় উপজেলা চেয়ারম্যান পুণঃরায় নারী ভাইস চেয়ারম্যানের মুঠোফোনে ফোন দিয়ে জানান, দ্রæত ওই নাম্বারে তালিকা পৌঁছে দিতে। আর আজকের মধ্যে ওই তালিকা না দিলে তা গ্রহন হবে না। পরে নারী ভাইস চেয়ারম্যান ওই মামুন নামের ভুয়া পরিচয় দানকারীর কাছে ১০টি নামের তালিকা দিলে তিনি নারী ভাইস চেয়ারম্যানকে তার এমডি’র সাথে কথা বলে আরো ১০০/১৫০ লোকের প্যাকেজ দিতে পারবেন বলে জানান। পরে তিনি তার এমডি’র মোবাইল নাম্বার ০১৩১০৭৭১৪১৮ দেয়। পরে ওই নাম্বারে ফোন দিলে তিনি জনৈক আকবর নামের পিরোজপুরের রেডক্রিসেন্টের এমডি পরিচয় দেয়।
এ সময় তিনি (ভুয়া এমডি) জানান, প্রতিটি নামের প্যাকেজে ৩০ কেজি চাল, ৫ কেজি ডাল, ৫ কেজি তেল ও নগদ অর্থ প্রদান করা হবে। আর এ জন্য প্রতিটি নামের বিপরীতে একটি করে ৭০০টাকার ফর্ম ক্রয় করতে হবে। আর এ জন্য তাদের দেয়া ০১৮৭৩১৯৫৯১৩ নাম্বারে নারী ভাইস চেয়ারম্যান ব্যাক্তিগত মোবাইলের বিকাশে থাকা ১৬,৩০০টাকা পাঠিয়ে দেয়।
নারী ভাইস চেয়ারম্যান পরবর্তীতে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এর কাছে বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি উক্ত নাম্বার জেলা রেডক্রিসেন্টের কোন কর্মকর্তা বা কর্মচারীর নয় বলে জানান।
 এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী ওই নারী ভাইস চেয়ারম্যান জানান, বিষয়টি আমি উপজেলা চেয়ারম্যানের কথামতো প্রতারিত হওয়ায় এ বিষয়ে থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করেছি।
এ ব্যাপারে মঠবাড়িয়া উপজেলা চেয়ারম্যান   মো. রিয়াজ উদ্দিন আহম্মেদের সাথে মুঠো ফোনে দিলে সে ফোন রিসিভ করেন নি।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad

Responsive Ads Here