ভান্ডারিয়ায় মিরাজুল ইসলামের অর্থায়নে রমজান উপলক্ষেখাদ্য সামগ্রী বিতরণ - মঠবাড়িয়ার বার্তা

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Sunday, May 3, 2020

ভান্ডারিয়ায় মিরাজুল ইসলামের অর্থায়নে রমজান উপলক্ষেখাদ্য সামগ্রী বিতরণ


মো,বাদল বেপারী, পিরোজপুর প্রতিনিধি : দেশের বিভিন্ন স্থানে করোনায় কর্মহীন শ্রমজীবী ও দুস্থদের খাদ্য সহায়তার পাশাপাশি রোজা উপলক্ষে জনপ্রতিনিধি, প্রশাসন, রাজনৈতিক দল ও বেসরকারি উদ্যোগে ইফতার সামগ্রীও দিয়েছেন। আর তাই পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলায় অসহায় ও কর্মহীন মানুষসহ নিম্ন মধ্যবিত্ত, মধ্যবিত্ত মানুষদের সহায়তায় পাশে দাঁড়িয়েছেন ভান্ডারিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মিরাজুল ইসলাম মিরাজ।

করোনা পরিস্থিতির শুরু থেকেই মিরাজুল ইসলাম ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনায় তার ব্যক্তিগত অর্থায়নে অসহায় ও কর্মহীন মানুষদের বাড়ি বাড়ি খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হয়। এরই ধারাবাহিকতায় পবিত্র রমজান মাসকে সামনে রেখে উপজেলার বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের ঘরে ঘরে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেয়ার কার্যক্রম শুরু করেছেন।
গত বুধবার থেকে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ দলীয় নেতাকর্মীরা একযোগে উপজেলার ১টি পৌরসভা ও ৬টি ইউনিয়নের প্রায় ৫০ হাজার পরিবারে এ খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেয়ার কাজ শুরু করেছেন। ভান্ডারিয়া উপজেলার ৬টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার মোট ৬৩টি ওয়ার্ডে উচ্চবিত্ত, মধ্যবিত্ত, নিম্ন মধ্যবিত্ত, হতদরিদ্রসহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার ৪১ হাজার ৯৭১টি পরিবার (খানা) রয়েছে। পাশাপাশি উপজেলায় আবাসন, আশ্রায়ন, গুচ্ছগ্রাম, ভাসমান এবং ভাড়াটিয়া মিলিয়ে আরও ৮ হাজার পরিবার রয়েছে।

করোনা পরিস্থিতির কারণে পবিত্র রমজান মাসকে সমানে রেখে উল্লেখিত ৪৯ হাজার ৯৭১ পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা হিসেবে প্রতিটি পরিবারকে ৫ কেজি চাল, ১ কেজি মশুর ডাল, ১ কেজি ছোলা বুট, ১ কেজি চিড়া, ৫০০ গ্রাম চিনি, আধা লিটার সয়াবিন তৈল এবং ১টি করে সাবান পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে।

এবিষয়ে উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. এহসাম হাওলাদার জানান, উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিরাজুল ইসলাম মিরাজের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে উপজেলার প্রতিটি বাড়িতে রমজান মাস উপলক্ষে খাদ্য সামগ্রী উপহার দেয়া হচ্ছে। বুধবার থেকে এসব খাদ্য সামগ্রী বাড়ি বাড়ি গিয়ে পৌঁছে দেওয়ার কাজ শুরু করেছে দলীয় স্বেচ্ছাসেবক দল। আগামী ২৫ এপ্রিলের মধ্যে উপজেলার প্রতিটি ঘরেই এ খাদ্য সামগ্রী পৌঁছানোর কাজ শেষ করা হবে। তিনি আরও জানান, বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া খাদ্য সামগ্রী কারও প্রয়োজন না হলে তিনি পাশ্ববর্তী অভাবী পরিবারের মাঝে তা বিতরণ করতে পারবেন।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad

Responsive Ads Here