মঠবা‌ড়িয়ার বলেশ্বরের ভাঙনে বেড়ীবাধ হুমকির মুখে ; আতংকে এলাকাবাসি - মঠবাড়িয়ার বার্তা

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Wednesday, May 20, 2020

মঠবা‌ড়িয়ার বলেশ্বরের ভাঙনে বেড়ীবাধ হুমকির মুখে ; আতংকে এলাকাবাসি


জুলফিকার আমীন সোহেল : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার বলেশ্বরের ভাঙনে ব্যপক হুমকির মুখে রয়েছে বেড়িবাধ। যে কোন সময় উপজেলার বড়মাছুয়া লঞ্চ ও স্টীমার ঘাট সংলগ্ন পাউবোর বেড়িবাঁধ নদী গর্ভে সম্পূর্ণ বিলীন হয়ে যেতে পারে। এমন আশংঙ্কায় খেজুরবাড়িয়া গ্রামসহ বেশ কয়েকটি গ্রাম প্লাবিত হতে পারে। অব্যাহত নদী ভাঙনে এলাকাবাসি রয়েছে চরম আতংকে তার ওপর ঘূর্ণিঝড় আম্ফান এর প্রভাবে স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৫/৭ ফুটপানি বৃদ্ধি পেয়েছে।

বুধবার দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, উপজেলার বড়মাছুয়া লঞ্চ ঘাট থেকে স্টীমার ঘাট হয়ে সামনে মাঝের খাল, কাটাখাল পর্যন্ত প্রায় দুই কিলোমিটার বেড়িবাধ ঝুঁকি পূর্ণ। এর মধে দেড় কিলোমিটার অত্যান্ত ঝুঁকির মুখে, পানি ছুঁই-ছুঁই। ঘূর্ণিঝড় আম্ফান এর প্রভাবে স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৫/৭ ফুটপানি বৃদ্ধি পেয়েছে। ইতোমধ্যে ওই এলাকার মানুষ দিক-বেদিক ছোটাছুটি করছে। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষথেকে বাব-বার সতর্কতা মূলক মাইকিং করা হছে। স্থানীয় চেয়ারম্যান ও বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবীরা সাধারণ মানুষদের আশ্রয় কেন্দ্রে যাবার পরামর্শ দিচ্ছেন।

স্থানীয় বাসিন্দা ফারুক তালুকদার জানান. বলেশ^র নদের অব্যহত নদী ভাঙ্গন ও বর্ষা মৌসুমে এর তীব্রতা আরও বেড়ে যায়। মুল বেড়িবাধ থেকে নদী প্রায় আধা কিলোমিটার দূরত্বে ছিলো। যা ভেঙে বেড়িবাধ ধরে গেছে। এ ভাঙনে বসত ঘরসহ দুই শতাধিক দোকানপাট গদীর গভেৃ বিলীন হয়ে গেছে। লঞ্চঘাট সংলগ্ন বাজার অর্ধেক বিলিনি হয়ে গেছে। স্টীমারের যাত্রী ছাউনী, টিকেট বুকিং কাউন্টারসহ বেশ কয়েকটি দোকান নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঊর্মি ভৌমিক বলেন, ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শণ করা হয়েছে। ওই এলাকার লোকজনকে আশ্রয় কেন্দ্রে নেয়া হয়েছে। এছাড়াও মাঝেরচর এলাকার লোকজন নিরাপদে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। বাঙনের বিষয় উর্দ্ধতণ কর্তৃপক্ষকে দ্রæত ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করা হয়েছে।

পিরোজপুর জেলা পাউবোর নির্বাহী প্রকৌশলী দীপক  রঞ্জন  দাস জনান, মঙ্গলবার (১৯মে) বিকেলে ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শণ করে উর্দ্ধতণ কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। দ্রæতই বেড়িবাধ রক্ষায় ৫‘শ মিটার বেড়িবাধে জিও ব্যাগ ফেলা হবে।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad

Responsive Ads Here